শেখ রাসেলের নামে ইনস্টিটিউট হচ্ছে মীরসরাইয়ে  

 ডেস্কঃ |  Monday, October 18th, 2021 |  6:38 pm
শেখ রাসেল।ফাইল ছবি।

 

টিপু মুনশি বলেন, ‘একজন শিশু কখনোই কোনো রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তির প্রতিপক্ষ হতে পারে না। শিশু হত্যা একটি জঘন্য ও ঘৃণীত কাজ; ঘাতকরা তা করেছে। ইতিহাসের পাতার খুনিরা ঘৃণীত ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে। রাসেল হত্যার বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান চিরদিন থাকবে। আমাদের সজাগ থাকতে হবে, যাতে ভবিষ্যতে কোনো শিশুকে হত্যা করা না হয়। শেখ রাসেল হত্যার বিচার হয়েছে। কোনো বাধাই এ বিচার ঠেকিয়ে রাখতে পারেনি।’

দক্ষতা উন্নয়নের মাধ্যমে রপ্তানি আয় বাড়াতে চট্টগ্রামের মীরসরাইয়ে শেখ রাসেল ইনস্টিটিউট অফ জেনারেল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি গড়ে তুলছে সরকার। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠপুত্র শেখ রাসেলের স্মৃতি ধরে রাখার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এটি নির্মাণ হচ্ছে।

সচিবালয়ে সোমবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত ‘শেখ রাসেল দিবস-২০২১’ আলোচনা সভায় এ তথ্য জানায় মন্ত্রণালয়।

এবারের শেখ রাসেল দিবসের প্রতিপাদ্য ‘শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস, অদম্য আত্মবিশ্বাস।’

শুরুতে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে ফুলের মালা দেয়া হয়।

বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষের সভাপতিত্বে আলোচনায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘শেখ রাসেলের জন্মদিনে আমরা শেখ রাসেল দিবস উদযাপন করছি। তবে আমাদের সামনে বার বার ভেসে উঠছে তার মৃত্যুর স্মৃতি। শেখ রাসেল ছিল বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সবচেয়ে আদরের শিশু, সবার প্রিয়। তাকেও পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।’

টিপু মুনশি বলেন, ‘একজন শিশু কখনোই কোনো রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তির প্রতিপক্ষ হতে পারে না। শিশু হত্যা একটি জঘন্য ও ঘৃণীত কাজ; ঘাতকরা তা করেছে। ইতিহাসের পাতার খুনিরা ঘৃণীত ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।

‘রাসেল হত্যার বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান চিরদিন থাকবে। আমাদের সজাগ থাকতে হবে, যাতে ভবিষ্যতে কোনো শিশুকে হত্যা করা না হয়। শেখ রাসেল হত্যার বিচার হয়েছে। কোনো বাধাই এ বিচার ঠেকিয়ে রাখতে পারেনি।’

 

আলোচনায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় অধিভুক্ত বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের চেয়ারপারসন মফিজুল ইসলাম, বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. মো. জাফর উদ্দীন, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস-চেয়ারম্যান এএইচএম আহসান, আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তরের প্রধান নিয়ন্ত্রক শেখ রফিকুল ইসলাম, যৌথ মূলধন কোম্পানি ও ফার্মগুলোর পরিদপ্তরের রেজিস্ট্রার শেখ শোয়েবুল আলম, ট্রেডিং করপোরেশন অফ বাংলাদেশ (টিসিবি)-এর চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আরিফুল হাসান ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মালেকা খায়রুন্নেসা অংশ নেন।