চবি ছাত্রলীগের ১২ কর্মিকে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয়

 গিয়াস উদ্দিন, চট্টগ্রাম বিশ্বিবদ্যালয় |  Monday, October 18th, 2021 |  1:33 am
ফাইল ছবি

বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ততার অভিযোগে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের ১২ কর্মীকে বহিষ্কার করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। রবিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের হেলথ,রেসিডেন্স এন্ড ডিসিপ্লিনারি কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ছাত্রলীগের বগিভিক্তিক গ্রুপ ৬৯ এর সদস্য
মো: নাঈম, (আধুনিক ভাষা, ১৯-২০) কে ছয় মাস
, সাইফুল ইসলাম,( বাংলা ১৯-২০) কে  মাস,
আশরাফুল আলম নায়েমকে (রসায়ন (১৬-১৭) এক বছর,  আকিব জাভেদকে , (পরিসংখ্যান বিভাগ ১৬-১৭) ছয় মাস, জুনায়েদ হোসেন জয়কে  (ইতিহাস, ১৫-১৬) ছয় মাস,  ফরহাদ, (অর্থনীতি, ১১-১২), মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

এছাড়া সিএফসি গ্রুপের  মিজা কবির সাদাফকে  (আইন ১৪-১৫) এক বছর,  অহিদুজামান সরকারকে ( লোকপশাসন,১৪-১৫) ছয় মাস,
আরিফুল ইসলামকে (সমাজ তত্ত্ব, ১৫-১৬), ছয় মাস,খালেদ মাসুদকে ( আইন বিভাগ ১৭-১৮) ছয় মাস, তৌহিদ ইসলামকে (আরবি, ১৯-২০) ছয় মাস
, তানজিল হোসেনকে ( কম্পিউটার বিজ্ঞান, ১৮-১৯)  ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল বলেন, ‘ বহিষ্কারের বিষয়টি আমি এখনো জানিনা। খবর নিয়ে জানাচ্ছি।‘

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূইয়া বলেন, বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ততার অভিযোগে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। রেসিডেন্স এন্ড ডিসিপ্লিনারি কমিটির সভায় ১২ জনকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

গত ১৫ অক্টোবর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুই পক্ষের কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের ৩ জন আহত হয় ।এ ঘটনার পর থেকে চট্টগ্রাম বিশ্বিবদ্যালয়ের আবাসিক  হলগুলোতে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) জুম্মার নামাজের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত ও শাহজালাল হলে ছাত্রলীগের দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে যায়।

বিবাদমান পক্ষ দুইটি হলো, শাখা ছাত্রলীগের বগি ভিত্তিক গ্রুপ সিক্সটি নাইন ও চুজ ফ্রেন্ডস ইউথ কেয়ার (সিএফসি)। এর মধ্যে সিএফসি গ্রুপ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল এবং সিক্সটি নাইন সাধারণ সম্পাদক ইকবাল টিপুর নিয়ন্ত্রণাধীন। দুটি গ্রুপের ১২ জনকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, রবিবার (১৭ অক্টোবর) বিকাল ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত ও শাহ জালাল হলের সামনে আবারও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বিবদমান পক্ষ দু’টি হলো শিক্ষা উপমন্ত্রী মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী সিএফসি ও চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছিরের অনুসারী সিক্সটি নাইন গ্রুপ।